Skip to content
Home » আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারন অর্থসহ ২০২১। (ayatul kursi bangla 2021.)

আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারন অর্থসহ ২০২১। (ayatul kursi bangla 2021.)

 

 

আয়াতুল কুরসি বাংলা। কুরআন মাজীদের শ্রেষ্ঠ আয়াত। আয়াতুল কুরসী সূরা আল বাকারা ২৫৫ আয়াত,আল কুরআনের কারীম একটি আয়াত বর্ণিত হয় মহান আল্লাহ শ্রেষ্ঠত্ব -মহত্ব- জ্ঞানী বিদ্যমান- মহিমা  ।

উজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতয়ানির রাজীম বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

                                                         <>  আয়াতু্ল কুরসী<>

আল্লাহু লা-ইলাহা ইল্লা হুয়াল হাইইয়্যুল- কাইয়্যুম,লা- তা” খুযুহু সিনাতু  ওয়া-লা নাউম । লাহু মা-ফীস সামাওয়াতি ওয়া-মা ফীল আরদি ।মান যাল্লাযী ইয়াশফাউ ইনদাহু ইল্লা- বি ইযনিহী, ইয়া লামু মা- বাইনা আইদীহিম ওয়া-মা খালফাহুম, ওয়া-লা ইউহীতূনা  বিশাইয়্যিম মিন বিমা শা-আ ।ওয়াসি”আ কুরসীয়্যুহুস  সামাওয়াতি ওয়াল আরদি ওয়া-লা ইয়াউদুহু হিফজুহুমা ওয়া হুয়াল আলীয়্যুলা আযী-ম  । (সূরা আল বাকারা -২৫৫ তম আয়াত )

<>আয়াতুল কুরসী বাংলা অর্থ <>  আল্লাহ , যিনি ব্যতীত কোন উপাস্য নাই । যিনি চিরঞ্জীব ও বিশ্বচরাচরের ধারক । কোন তন্দ্রা ও নিদ্রা থাকি পাকড়াও করতে পারেনা ।

 

 আসমান ও যমীনে যা কিছু আছে সব কিছু তারই মালিকানাধীন । তার নির্দেশ ব্যতীত এমন কে আছে যে তার নিকট সুপারিশ করতে পারে? তাদের সম্মুখে ও পিছনে যা কিছু আছে সবই তিনি জানে ।  

 

তার জ্ঞানের সাগর হতে তারা কিছুই আয়ত্ত করতে পারে না, কেবল যতটুকু তিনি ইচ্ছা করেন তা ব্যতীত । তার কেদারা সমগ্র আসমান ও জমিন পরিবেষ্টন করে আছে । আর সেগুলির তত্ত্বাবধান তাকে মুটেই শ্রান্ত করে না । তিনি সর্বোচ্চএবং বৃহত্তম ।

মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২১। [baby new name 2021]

 

<। আয়াতুল কুরসি ছবি<

 

 

<>আয়াতুল কুরসির ফজিলত <>

 

  • হযরত আবূ উমামা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফজর নামাজ শেষ করে আয়াতুল কুরসী পড়বে তার জান্নাতে প্রবেশ করতে হলে মৃত্যু ছাড়া আর কোনো বাধা থাকবে না ।
  • রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কাউকে জিজ্ঞেস করে, তোমার কাছে কুরআন কোন আয়াত সর্বশ্রেষ্ঠ? তিনি বলেন,( আল্লাহু লা ইলাহা ইল্লাহু আল হাইয়্যুল কাইইয়্যুম) তারপর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম  নিজ হাত তার বুকে রেখে বলেন আবুল মনযির! এই এলেমের  কারণে তোমাকে ধন্যবাদ-হযরত উবাই বিন কাব  রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত ।
  • আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি ,যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফজর নামাজের পর আয়াতুল কুরসী নিয়মিত পড়্‌ তার জান্নাতে প্রবেশ সে কেবল মৃত্যুই অন্তরায় থাকে।  যে ব্যক্তি একটি শোয়ার আগে পড়বে আল্লাহ তার ঘর প্রতিবেশীর ঘর এবং আশপাশের সব ঘরে শান্তি বজায় রাখবেন  ।

 

 

<>আয়াতুল কুরসি<>

এটি এইমাত্র সূরা, এই সূরার অনেক ফজিলত । হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন তোমরা প্রতি ফজরের নামাজের শেষে আয়াতুল কুরসি পাঠ করো। আয়াতুল কুরসি এমন একটি সূরা  যা পাঠ  করলে তোমার জীবন বদলে যাবে। দুনিয়াতে নাও বদলাতে পারে কিন্তু আখিরাতে বদলাবেই বদলাবে ,প্রতি ফজরে পাটকরলে মৃত্যু ছাড়া জান্নাতে যাওয়া শুধু এইটুকু বাকি/ সহজ ভাষায় বলতে গেলে  মৃত্যুর সাথে সাথেই জান্নাতি ।এটি কোরআন মাজিদের একটি গুরুত্বপূর্ণ মানুষের জীবনকে বদলে দিতে পারে । তাই প্রতিনিয়ত বেশি বেশি করে পড়ার চেষ্টা করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *